মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২০

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় ক্লোরোকুইন কি আসলে কাজ করে?

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় ক্লোরোকুইন কি আসলে কাজ করে?

image_pdfimage_print

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চমকসৃষ্টি করা কথা বলতে পছন্দ করেন। সর্বশেষ তিনি চমক দিলেন করোনার চিকিৎসার প্রেসক্রিপশন হিসেবে দীর্ঘদিনের পরিচিত ম্যালেরিয়ার ওষুধ ক্লোরোকুইনের নাম উল্লেখ করে। এটা নিয়ে আমেরিকা আর ভারতের মধ্যে নাকি বাণিজ্যিক রশি টানাটানিও চলছে।

কিন্তু যে ক্লোরোকুইন নিয়ে এত কান্ড সেটা কি আসলে করোনার চিকিৎসায় কাজ করে?

এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ রোগের চিকিৎসায় ক্লোরোকুইনের উপযোগিতা নিয়ে সর্বশেষ গবেষণার ফলাফল অনুসন্ধান করে মোট ছয়টি আর্টিকেল পাওয়া যায়। এদের মধ্যে একটি জার্নালের সম্পাদকের নিকটে লেখা পত্র, একটি শুধু গবেষণাগারে করা পরীক্ষার ফলাফল, একটি সম্পাদকীয়, একটি বিশেষজ্ঞদের মতামত আর দুইটি জাতীয় গাইডলাইনের নির্দেশনা। এছাড়া এই মুহূর্তে বিভিন্নস্থানে ২৩ টি ক্লিনিকাল ট্রায়াল চলছে অর্থাৎ সেগুলিও গবেষণার পর্যায়ে রয়েছে।

অনেকে মনে করছেন করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ক্লোরোকুইন কাজ করে। এই মনে করার কারণ গবেষণাগারে ক্লোরোকুইন ব্যবহার করলে এই ভাইরাসটির বংশবৃদ্ধি কমে যায়। গবেষণাগারের এধরণের গবেষণাকে বলা হয় ইন-ভিট্রো স্টাডি (in-vitro study)। অনেক ওষুধই গবেষণাগারে কাজ করলেও, মাঠে আসল রোগীর উপর কাজ করে না।

এজন্য প্রশ্ন হচ্ছে, সরাসরি করোনা আক্রান্ত রোগীকে ক্লোরোকুইন দিলে কি আসলেই উপকার হবে? সেসম্পর্কে এখন পর্যন্ত আসলে কেউ নিশ্চিত ফলাফল পাওয়ার কথা নথিবদ্ধ করেন নি। নেদারল্যান্ড, ইতালী এবং ফ্রান্সে আরও তিনটি পর্যবেক্ষণের ফলাফল দেওয়া হয়েছে। নেদারল্যান্ডে ক্লোরোকুইন ব্যবহার করার পাঁচদিনের মাথায় পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার জন্য ওষুধ বন্ধ করে দিতে হয়েছে এবং চিকিৎসকগণ ক্লোরোকুইনের কার্যকারিতা সম্পর্কে কোন সিদ্ধান্তে আসতে পারেননি। ইতালীর গবেষণার ফলাফল এখনও জানা সম্ভব হয়নি।বাস্তবে ইতালীর করোনা পরিস্থিতি এতই ভয়াবহ যে এসম্পর্কে আর কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। ফ্রান্সের চিকিৎসকগন ক্লোরোকুইনের সংগে অ্যাজিথ্রোমাইসিনও ব্যবহার করেছেন।ঠিক কি কারণে তারা এটা করলেন তার ব্যাখ্যা এখনও পাওয়া যায়নি। তাদের দেখার বিষয় ছিল চিকিৎসার ষষ্ঠ দিনে রোগীর শরীরে ভাইরাসের লোড কমেছে কিনা? কিন্তু এপর্যন্ত যা দেখা যাচ্ছে তাতে ষষ্ঠ দিনে ভাইরাসের পরিমাণ না কমে, ক্লোরোকুইন ব্যবহারের পরে বরং বেড়ে গিয়েছে।

সর্বশেষ মতামত হচ্ছে, গবেষণাগারে করোনাভাইরাসের উপর ক্লোরোকুইনের কিছু কার্যকারিতা দেখা গেলেও বাস্তবে রোগীর শরীরে এটা কাজ করে এমন নিশ্চিত বলা যাচ্ছে না। সুতরাং ক্লোরোকুইন নিয়ে এত কাড়াকাড়ি করা অর্থহীন। করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় শুধু ক্লিনিকাল ট্রায়াল হিসেবে ক্লোরোকুইন ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে তার জন্য সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল এবং চিকিৎসকের গবেষণা করার স্বীকৃত ইথিকাল ক্লিয়ারেন্স থাকতে হবে।

ক্লোরোকুইনের এমন ডামাডোলের ফলে যেসকল রোগীর ক্লোরোকুইন আসলে দরকার তারা অনেকে সহসা এটা আর বাজারে খুঁজে পাচ্ছেন না এবং যারপর নাই মানসিক ও শারীরিক যাতনার শিকার হচ্ছেন। অতএব ক্লোরোকুইন নিয়ে বাতুলতা অবিলম্বে বন্ধ হওয়া উচিত।

তথ্যসূত্রঃ
• Cortegiani, A., et al., A systematic review on the efficacy and safety of chloroquine for the treatment of COVID-19. J Crit Care, 2020.
• Gupta N, Agrawal S, Ish P. Chloroquine in COVID-19: the evidence. Monaldi Arch Chest Dis. 2020;90(1)

FavoriteLoadingপ্রিয় পোস্টের তালিকায় নিন।

About The Author

মন্তব্য করুন