শুক্রবার, ডিসেম্বর ৩, ২০২১

গ্যাসের ঔষধ

গ্যাসের ঔষধ

image_pdfimage_print

আমাদেরকে সৃষ্টি কর্তা এমন করে বানিয়েছেন যেন আমাদের কোন সমস্যা না হয়। যেমন আমরা  খাবারের সাথে যদি কোন জীবানু খেয়ে ফেলি তা যেনআমাদের শরীরে গিয়ে রোগ করতে নাপারে সেজন্য  আমাদের পেটেরপাকস্থলী থেকে হাইড্রক্লরিক এসিড সবসময় তৈরি হয়। এই এসিড খাবারেরসাথের  সব জীবানুকে মেরে ফেলেআমাদেরকে রক্ষা করে। এছাড়াখাবারের সাথে যে ভিটামিন এবংআয়রন আমাদের পেটে যায় তা রক্তেযাবার উপোযোগী করে দেয় এই এসিড।তবে কিছু কিছু মানুষের শরীরে এসিডেরপরিমান বেড়ে গিয়ে পাকস্থলীতে ঘাবা আলসার হতে পারে, এই সব মানুষেরসাধারনত গ্যাসের  ঔষধ বা PPI জাতীয়ঔষধ দিয়ে চিকিৎসা করা হয়। সাধারনতগ্যাসের ঔষধ একটানা ২ মাসের বেশি  দেবার কোন প্রয়োজন হয় না। যাদেরপেটে আলসার থাকে তাদের আমরা ২মাস গ্যাসের ঔষধ দিয়ে থাকি।

গ্যাসের ঔষধ বেশি/প্রয়োজন ছাড়া খেলে কি কোন সমস্যা আছে?

অনেক সমস্যা আছে, যেমন-
১। গ্যাসের ঔষধ বেশি খেলে পাকস্থলীতে এসিডের পরিমান কমে যাবে, যার কারনে খাবারের সাথে কোন জীবানু ঢুকলে তা সহজেই খাদ্যনালীতে ইনফেকশন করবে।
২। শরীরে আয়রন এর ঘাটতি দেখা দিতে পারে।
৩। ভিটামিন বি-১২ এর ঘাটতি দেখা দিতে পারে।
৪। কিডনীর সমস্যা হতে পারে (interstitial nephritis)।
৫। হাড়ের সমস্যা হতে পারে (Osteoporesis)।
৬। যেটা নিয়ে সব চেয়ে বেশি ভয়ের কারন পাকস্থলীতে ক্যান্সার হতে পারে, ক্যান্সারের জীবানু (কারসিনোজেন) সাধারনত এই এসিড দারা নিষ্ক্রিয় হয়।
৭। এছাড়াও অনেক কিছু হতে পারে।

পেটে আলসার হবার লক্ষন-সাধারনত নাভীর উপরে পেট ব্যাথা হয়, ব্যাথা খুব বেশি হয় না (সাধারনত সহ্য করার মত ব্যাথা), জলে বা চিন চিন করার মত ব্যাথা হয়; খালি পেটে ব্যাথা বেশি হয়, কারো কারো ক্ষেত্রে খাবার পর ব্যাথা বেশি হয়। পায়খানা কালো (রক্ত যেতে পারে)।

ঢেকুর উঠা, পেটে কেমন কেমনলাগা এগুলো আলসার রোগের লক্ষন নয়।

গ্যাসের ঔষধ কখন জরুরী?
১। কোন ব্যথার ঔষধ (NSAIDs জাতীয়) খেলে গ্যাসের ঔষধ খেতে হবে।
২। পেটে আলসার হলে। পেটের সমস্যা মানেই গ্যাস না।

পান- সুপারী, জরদা, গুল, আলোয়া, ধুম্পান না করলে পেট অনেক ভালো থাকে। ওজন নিয়ন্ত্রনে রাখুন, চর্বি জাতীয় খাবার, তেল জাতীয় খাবার কম খান, অল্প করে খাবার খান। এমন করে খান যেন পেট  কিছুটা খালি থাকে। কোন সমস্যা হলে ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন। কথায় কথায় গ্যাসের ঔষধ খাবেন না, আপনার শরীর ঠিক রাখার দায়িত্ত আপনার।

ভালো থাকার জন্য একটু সচেতনতাই যথেষ্ট।

FavoriteLoadingপ্রিয় পোস্টের তালিকায় নিন।

About The Author

মন্তব্য করুন