রবিবার, জুলাই ২৫, ২০২১

শরীরটাকে খাটান, সুস্থ থাকুন।

শরীরটাকে খাটান, সুস্থ থাকুন।

image_pdfimage_print

হাত-পাগুলো ফেলে রাখার জন্য নয়, রোজ নিয়ম করে শরীরটাকে একটু খাটান। রোজ মাত্র আধঘন্টা সপ্তাহে অন্তত ছ’টা দিন। একান্তই না-পারলে কম করে তিনদিন। পরিশ্রম করলে হৃদযন্ত্রের ক্ষমতা বাড়ে, বাড়ে করোনারি ধমনীর বিকল্প প্রাকৃতিক বাইপাস। কমে করোনারী ধমনীর বিকল্প প্রাকৃতিক বাইপাস। কমে করোনারি হৃদরোগের আশঙ্কা, হার্ট অ্যাটাকের ভয়। বিশেষ করে যেসব পেশায় মানসিক পরিশ্রম বেশি, শরীরের খাটনি প্রায় নেই, হার্ট বাঁচাতে এমন পেশার মানুষকে খাটাতে হবে শরীরটাকে। অথবা যোগ্য প্রশিক্ষকের কাছে শিখে নিতে হবে হৃদয় ভাল রাখার উপযুক্ত যোগাসন।

জোরে হাঁটা, দৌড়োনো, সাঁতার কাটা, নাচা, স্কেটিং, মাঠে খেলা বা জোরে সাইকেল চালানোর মতো ‘এরোবিক এক্সারসাইজ’- এর যে-কোনও একটা বেছে নিন। যেটা পছন্দ হয় বা সুবিধাজনক মনে হয়। এতে শরীরে অক্সিজেনের জোগান বাড়বে, বাড়বে করোনারি ধমনীর নেটওয়ার্ক। শরীরের ক্ষমতা বেড়ে আনন্দ বাড়বে, ঝরে যাবে বাড়তি ওজন। কমবে কমবেই হার্ট অ্যাটাকের ভয়।

নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রমে শুধু ওজন কমে না, কমে রক্ত চাপ আর কোলেস্টেরলের মাত্রা, কমে ডায়াবেটিসের ভয়। হার্ট অ্যাটকের আশঙ্কা তাই একভাবে নয়, কমে নানা ভাবে। এ ছাড়াও শারীরিক পরিশ্রমে শরীরে ফুর্তি আসে, কমে মনের চাপ। হাড় আর সন্ধি গুলোর জোড় বাড়ে। বাড়ে যৌন সক্ষমতা। এবার আপনার মত করে বেছে নিন যে কোন একটা ব্যায়াম বা খাটুনি। শুরু করতে গড়িমসি নয় শুরু হোক আজই। মাঝে মধ্যে মনে পড়লে নয়, রোজ নিয়ম করে করুন যে-কোন একটা ব্যায়ামঃ2_150090

  • ঘণ্টায় পাঁচ কিলোমিটার বেগে ত্রিশ মিনিট হাঁটুন।
  • ঘন্টায় ছয় কিমি বেগে তেইশ মিনিট বা সাড়ে ছয় কিমি বেগে সতেরো মিনিট হাঁটুন।
  • অত হিসেব না করে যতটা জোড়ে পারেন একটানা কুড়ি মিনিট হাঁটুন।
  • আধ ঘন্টা ফ্রী-হ্যান্ড ব্যায়াম করুন সারা শরীরের।
  • মাঝারি বেগে দশ মিনিট সিঁড়ি ওঠানামা করুন ।
  • জোড়ে তিন চার কিমি সাইকেল চালান ফাঁকা রাস্তায়।
  • এক কিমি বা কুড়ি মিনিট সাঁতার কাটুন।
  • কুড়ি মিনিট ব্যাডমিন্টন খেলুন।
  • আধ ঘন্টা জোড়ে হাঁটুন ছাদে বা বাগানে।
  • এক ঘন্টা কাজ করুন বাগানে।
  • আধ ঘন্টা নাচুন।
  • আধ ঘণ্টা স্কেটিং করুন।
  • দশ মিনিট ফাঁকা মাঠে দৌড়োন।

একবারে না পারলে আস্তে আস্তে বাড়ান, বিশেষ করে বয়স চল্লিশ বা তার বেশি হলে।

অ্যানজাইনা থাকলে, অন্য কোনও বড় শারীরিক সমস্যা থাকলে, হার্ট অ্যাটাক হয়ে গিয়ে থাকলে ব্যায়াম অবশ্যই করবেন আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে।

FavoriteLoadingপ্রিয় পোস্টের তালিকায় নিন।

About The Author

মন্তব্য করুন