বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৬, ২০১৮

বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস (World TB-Day)

বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস (World TB-Day)

আজ ২৪ মার্চ
সারা বিশ্বে পালিত হচ্ছে “বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস”
এবারের প্রতিপাদ্য “Wanted: Leaders For A TB – Free World”
যক্ষ্মামুক্ত পৃথিবীর জন্য নেতারা এগিয়ে আসুন।
১৮৮২ সালের ২৪ মার্চ জার্মান চিকিৎসাবিজ্ঞানী রবার্ট কক যক্ষ্মার জীবানু আবিষ্কার করেন। আবিস্কারের দিনটি স্মরণীয় করে রাখার জন্যই এদিনটিকে বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস ঘোষণা করা হয়।
বাংলাদেশেও আজ যথাযোগ্য মর্যাদায় দিনটি পালিত হচ্ছে।
যক্ষ্মা জীবানু আবিষ্কারের পর ১৩৬ বছর পার হয়ে গেল অথচ এ একটি জীবাণুর সাথে আধুনিক চিকিৎসাবিজ্ঞানও কুলিয়ে উঠতে পারছেনা।
প্রতিবছর সারা পৃথিবীতে আনুমানিক ৯০ লক্ষ টিবি রোগী হয়; যার মধ্যে অন্তত ১৫ লক্ষ মারা যায়।
আনুমানিক ৪,৯০,০০০ এমডিআর টিবি রোগী হয়; যার অন্তত ৬.২% এক্সডিআর টিবি। মৃত্যু হার ৫০%। আর এইচআইভি-এইডস প্রবণদেশে মৃত্যু হার আরো অনেক বেশী।
কিছু রোগী আছে যারা কোন টিবির ঔষধেই ভাল হয়না; এদেরকে বলা হয় TDR-TB (Totally Drug Reasistant TB)।
বাংলাদেশে প্রতিবছর আনুমানিক ৩ লক্ষ যক্ষ্মা রোগী হয়; যার মধ্যে অন্তত ৪৫০০০ মারা যায়; অথচ টিবি ব্যবস্হাপনায় বাংলাদেশ একটি মডেল দেশ। তাহলে অন্য দেশের কথা ভাবুন !
আমাদের দেশে প্রতিবছর ৫৩০০ এমডিআর-টিবি রোগী হয় অথচ সনাক্ত করতে পারছি মাত্র ১০০০ জনেরও নীচে। এর মধ্যে প্রায় ৯% প্রিএক্সডিআর ও এক্সডিআর। এমডিআর-টিবি রোগী সনাক্ত করাই এখন আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ।
আমাদের দেশে চিকিৎসা সফলতার হার ঔষধ সংবেদনশীল যক্ষ্মায় ৯৪% এবং ঔষধ প্রতিরোধী যক্ষ্মায় ৭৩% বিশ মাসের স্ট্যান্ডার্ড পদ্ধতিতে ও ৮০% এর উপরে নূতন নয় মাসের Shorter Treatment Regimen এ।
যক্ষ্মা চিকিৎসা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করা হয়। সরকারী ও সরকার নির্ধারিত এনজিওর মাধ্যমে চিকিৎসা প্রদান করা হয়।
সরকারের খরচঃ-
একজন নূূতন রোগীর ৬ মাসের ঔষধ বাবদ ৩,০০০/
পুনঃআক্রান্ত ১০,০০০/
এমডিআর টিবি ১ লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকা
এক্সডিআর টিবি ২৫ লক্ষ থেকে ৩০ লক্ষ টাকা

বাংলাদেশের প্রতিটা যক্ষ্মা রোগীর চিকিৎসা করার সক্ষমতা জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির রয়েছে। ঔষধ এবং জনবলের কোন অভাব নেই। সদাশয় সরকার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যক্ষ্মার দিকে দৃকপাত করে আছেন।
জনগণের সঠিক এবং সফল অংশগ্রহণের মাধ্যমেই যক্ষ্মারোগ দেশ থেকে নির্মূল হবে ইনশাআল্লাহ্‌।
তিন সপ্তাহের অধিক কাশি হলেই নিকটস্হ সরকারী হাসপাতাল কিংবা এনজিও ক্লিনিকে আসুন। যক্ষ্মা হোক বা না হোক প্রয়োজনীয় সেবাটি পাবেন।

বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস সফল হোক
হোক সফল বাংলাদেশ
হোক দেশ যক্ষ্মা মুক্ত ~~~~~~~

ডাঃ মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান আকন্দ
জাতীয় পিএমডিটি কোঅর্ডিনেটর
জাতীয় যক্ষ্মা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি বাংলাদেশ

***২৪ মার্চ ২০১৮***

image_print
FavoriteLoadingপ্রিয় পোস্টের তালিকায় নিন।

About The Author

মন্তব্য করুন