রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮

নরমাল ডেলিভারী বনাম সিজারিয়ান সেকশন

নরমাল ডেলিভারী বনাম সিজারিয়ান সেকশন

নরমাল ডেলিভারী বনাম সিজারিয়ান সেকশন।

স্বাভাবিক প্রজনন পথে বাচ্চা ভূমিষ্ট হওয়াকেই সাধারন মানুষ নরমাল ডেলিভারী বা স্বাভাবিক প্রসব বলে। আমরা তা বলি না। আমরা বলি ভ্যাজাইনাল ডেলিভারী। ভ্যাজাইনাল ডেলিভারী মানেই স্বাভাবিক ডেলিভারী নয়।

গর্ভপূর্ন বয়সে ( ৩৭ -৪২ সপ্তাহ) মাথা সামনে নিয়ে মায়ের প্রাকৃতিকভাবেই নিজ থেকে ব্যথা শুরু হয়ে, আপনগতিতে ব্যথা বাড়তে বাড়তে চিন চিনা ব্যথা শুরু হওয়া থেকে ১৬ ঘন্টার মধ্যে কোন যন্ত্রপাতি কাটাছিড়া ছাড়া মা ও বাচ্চার কোন অসুবিধা না করে মায়ের প্রসব পথ দিয়ে মাকে তীব্র ব্যথানুভূতি দিয়ে একটি ক্রন্দনরত সুস্থ বাচ্চা ডেলিভারী হওয়াকে স্বাভাবিক প্রসব বা নরমাল ডেলিভারী বলে।

২৮ সপ্তাহের পর থেকে যে কোন সময়ে মাকে অজ্ঞান করে পেট কেটে জরায়ু কেটে একটি বাচ্চাকে ৩ থেকে ৫ মিনিটের মধ্যে কোলে তুলে নিয়ে আসাকে সিজারিয়ান সেকশন বলে।

কেউ যদি জিজ্ঞেস করেন ” আপনি চিকিৎসক হিসেবে কোনটা করাতে চান”?

উত্তর: ইলেকটিভ সিজারিয়ান সেকশন। অর্থাৎ পূর্বনির্ধারিত সময়ে।

কেন?

দেখছেন না, সঙ্গাটা কত বড়। অত বড় সঙ্গায় ভীষন ঝামেলা। অত্যন্ত কঠিন। ভয়ের। যে কোন সময়ে ইমার্জেন্সী হতে পারে।

যে ঝামেলায় রেহনূমা পরেছে।

এদেশে এই ঝামেলা উত্তরনের উপায় দু’টো

১। ফিক্সট প্রোটকল ফর লেবার ম্যানেজমেন্ট। যেখানে সকল অবস্টেট্রিসিয়ান একইভাবে ম্যানেজ করবে। ফলাফল যা-ই হোক পেশেন্ট পার্টির ব্লেইম কাজে আসবে না।

২। ভ্যাজাইনাল ডেলিভারী নরমালের চার্জ সি সেকশনের চার্জের তিনগুন হতে হবে আর ভ্যাজাইনাল ইন্সট্রুমেন্টালের চার্জ সি সেকশনের চারগুন হবে।

তাহলেই টাকার জন্য সিজার বলা দূর হবে।

 

image_print
FavoriteLoadingপ্রিয় পোস্টের তালিকায় নিন।

About The Author

মন্তব্য করুন