মঙ্গলবার, জুন ২৫, ২০১৯

দেশে দেশে স্বাস্থ্য সেবায় সহিংসতা ।।৮।। অস্ট্রেলিয়া

দেশে দেশে স্বাস্থ্য সেবায় সহিংসতা ।।৮।। অস্ট্রেলিয়া

মার্চ ২০১৬। দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার একটি দুর্গম এলাকার নার্স গেইল উডফোর্ডকে রাতে জরুরী কল দিয়ে ডেকে নিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। দুইদিন পরে তার লাশ খুঁজে পাওয়ার পর সকলে গভীর শোকে মুহ্যমান হয়ে পড়েন। এলাকায় নার্স হিসেব উডফোর্ডের সুনাম ছিল। পরবর্তীতে খুনী রোগীকে শনাক্ত করা হলে দেখা যায় সে মানসিক বিকারগ্রস্থ এবং মাদকাসক্ত। এই ঘটনার পরে অস্ট্রেলিয়ার স্বাস্থ্যসেবাকর্মীদের নিরাপত্তা নিয়ে আবার নতুন করে আদ্যোপান্ত বিশ্লেষণ শুরু হয়।

অন্যান্য দেশের মতো অস্ট্রেলিয়াতে স্বাস্থ্য সেবাদানের ক্ষেত্রে ডাক্তার-নার্স এবং অন্যান্য কর্মীদের ওপর সহিংস আচরণ নতুন নয়। ২০১৪ সালের একটি রিপোর্টে দেখা যায় তার আগের ৫ বছরে অস্ট্রেলিয়ার ২৪,৫০০ স্বাস্থ্যকর্মী তাদের কর্তব্য পালন করতে গিয়ে অযথা হয়রানি কিংবা হামলার শিকার হয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়ার প্রতিটি ষ্টেটের স্বাস্থ্য বিভাগ এটাকে গুরুত্ব সহকারে মোকাবেলা করার চেষ্টা করে থাকেন। উদাহরণস্বরূপ কুইন্সল্যান্ডের টাস্কফোর্স রিপোর্টের উল্লেখ করা যায়। অত্যন্ত শক্তিশালী একটি কমিটি স্বাস্থ্যসেবায় ঝুঁকির নানাদিক পর্যবেক্ষণ এবং বিশ্লেষণ করে কর্মপন্থা সুপারিশ করেছেন। এখানে রিপোর্টের বিস্তারিত আলোচনা অপ্রাসঙ্গিক। ডাক্তার এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীদের নিরাপত্তার নানাবিধ ব্যবস্থার পাশাপাশি তারা যে সকল ব্যবস্থা নিয়েছেন তার মধ্যে উল্লেখ্য হচ্ছে আইনগত কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা। কুইন্সল্যান্ডে কোন ডাক্তার, নার্স কিংবা স্বাস্থ্যকর্মীকে অযথা হামলা, হয়রানি কিংবা নিগ্রহ করলে হামলাকারী রোগী কিংবা রোগীর স্বজনদের ১৪ বছর পর্যন্ত সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়ার বিধান রয়েছে এবং বিভিন্ন সময়ে এটা বেশ ফলাও করে প্রচার করা হয় যেন সকলে এটা মনে রাখেন।

তথ্যসূত্রঃ Occupational Violence Prevention in Queensland Health’s Hospital and Health Services. Taskforce Report. 31 May 2016.

image_print
FavoriteLoadingপ্রিয় পোস্টের তালিকায় নিন।

About The Author

মন্তব্য করুন