শনিবার, ডিসেম্বর ৭, ২০১৯

হার্ট অ্যাটাকের চিকিৎসা

হার্ট অ্যাটাকের চিকিৎসা

image_pdfimage_print

হার্ট রোগীর চিকিৎসার একেবারে গোড়ার কথা হল রোগীর তীব্র যন্ত্রণার উপশম ঘটিয়ে তার এ সংক্রান্ত উদ্বেক, অশান্তি বা ভয়কে কমিয়ে আনা। জখম হওয়া হৃদযন্ত্র আগের মত কর্ম দক্ষ থাকবে না, এটাই স্বাভাবিক। এমন চোট পাওয়া হৃদপিণ্ডের ওপর চাপ যতটা কমানো যায় তত মঙ্গল। ব্যথা বা যন্ত্রনা আর ভয় উদ্বেক কমানোর পাশাপাশি রোগীর পুরোপুরি বিশ্রামে শুইয়ে রাখা, বারবার এমনি আশ্বস্ত করা তাই জরুরি। এর পাশাপাশি অ্যাটাকের কারণে দেখা দেওয়া শক, হৃদব্যর্থতা, ফুসফুসে জল, হৃদ স্পন্দনের ছন্দ পতন- ইত্যাদি সমস্যার চিকিৎসা যত দ্রুত শুরু হবে, রোগীর সেরে ওঠার সম্ভাবনা তত বাড়বে।

চিকিৎসার শুরু

বুকের যন্ত্রনা খুব তীব্র হলে, রোগী পড়ে গেলে বা জ্ঞান হারালে, খুব বেশি শ্বাসকষ্ট থাকলে স্থানীয় চিকিৎসকের খবরদেবার পাশাপাশি অ্যাম্বুলেন্স ডাকা জরুরি। তাড়াতাড়ি ডাক্তার পাওয়া গেলে চিকিৎসক রোগীকে দ্রুতলয় পরীক্ষা করে ব্যথা কমানোর ওষুধ ও অন্য কোনও ওষুধ দেবার পর তাড়াতাড়ি ই সি জি করার ব্যবস্থা করবেন। এরকম ব্যবস্থা না থাকলে চিকিৎসক বলামাত্র অ্যাম্বুলেন্সের স্ট্রেচারে রোগীকে শুইয়ে দ্রুত তাঁকে নিয়ে যেতে হবে সবচাইতে কাছের যে কোন হাসপাতালে। সম্ভব হলে আই. সি. সি. ইউ. এমন কোন চিকিৎসা কেন্দ্রে।

ইনফার্কশন মৃদু হলে, রোগীর উপসর্গ তেমন তীব্র না হলে বা হার্ট অ্যাটাকের ব্যাপারে সন্দেহ থাকলে ডাক্তার প্রাথমিক চিকিৎসা আর ই সি জি করে যেভাবে বলবেন সেভাবে চিকিৎসা করতে হবে। তিনি বললে রোগীকে হাসপাতালে পাঠাতে গিয়ে নষ্ট করা চলবে না অমূল্য সময়।

হার্ট অ্যাটাকের রোগীর মরাবাচার প্রশ্নে প্রত্যেকটা মিনিটের দাম অনেক। এই মহামূল্যবান সময়ের একশো ভাগ সদ্ব্যবহার ইনফার্কশনের রোগীর চিকিৎসার পক্ষে, ভাল হবার পক্ষে সবিশেষ জরুরি।   

FavoriteLoadingপ্রিয় পোস্টের তালিকায় নিন।

About The Author

মন্তব্য করুন