বুধবার, অক্টোবর ৯, ২০১৯

শিশুরোগ

শিশুরোগ

image_pdfimage_print

আয়ুর্বেদে শিশুর সংজ্ঞা ৩ প্রকার। অর্থাৎ শিশুর বয়ঃসীমাকে ৩ ভাগে দেখা হয়। (১) দুগ্ধজীবী, (২) দুগ্ধন্নজীবী, (৩) অন্নজীবী। এখানে পথ্যাপথ্যের ব্যবস্থায় দুগ্ধজীবী শিশুর ক্ষেত্রে কেবল তার মাকেই চিকিৎসা করতে হবে, আর দুগ্ধন্নজীবীর জন্য উভয়কে, আর অন্নজীবীর জন্য সেই শিশুকেই ঔষধ ও পথ্যের ব্যবস্থা করতে হবে। তবে তার রোগ হলেই যে উপবাসে রাখতে হবে সেটাও বিধি নয়, তবে পুরোপুরি অন্নজীবী হলে তার স্বতন্ত্র ব্যবস্থা। এই জন্য শিশুর এ ত্রিবিধ অবস্থা বিবেচনা করে তার পথ্যের ব্যবস্থা করতে বলেছেন।

সুপ্রাচীন আয়ুর্বেদীয় বৈদ্যগণ মনে করেন যে, শিশুরোগের কারন গ্রহবৈগুণ্য, তাদের কোন চিকিৎসা ব্যবস্থা করতে হয় না, গ্রহদুষ্টি অপসৃত হলেই রোগ সেরে যাবে। কিন্তু যুক্তিবাদী আয়ুর্বেদীয় চিকিৎসক বলেন, বিনা কারনে কোন ব্যাধির সৃষ্টি হয় না, তখন ব্যাধির অস্তিত্ব দেখেই তার  কারন নিরসন করার ব্যবস্থা করতে হবে।

[সূত্রঃ চিরঞ্জীব বনৌষধি, ১ম খণ্ড]

FavoriteLoadingপ্রিয় পোস্টের তালিকায় নিন।

About The Author

মন্তব্য করুন